Skip to content
Home » যেসব অ্যাপস কখনোই ব্যবহার করবেন না!

যেসব অ্যাপস কখনোই ব্যবহার করবেন না!

যেসব অ্যাপস কখনোই ব্যবহার করবেন না!

আমরা নতুন স্মার্টফোন কিনলে বেশ কিছু অ্যাপস আমাদের ফোনে ডিফল্টভাবে ইনস্টল করা থাকে। যা আমাদের সকল প্রয়োজন মেটাতে পারে না। তাই আমরা অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারী হলে প্লে স্টোর আর অ্যাপল ব্যবহারকারী হলে অ্যাপ স্টোর থেকে বিভিন্ন অ্যাপস ইনস্টল করি। এই অ্যাপগুলোর সবগুলোই কিন্তু আমাদের জন্য প্রকৃতপক্ষে উপকারী না, বরং অনেক অ্যাপস আছে মারাত্মক ক্ষতিকর। আজকের পোস্টে আমরা এমন কিছু অ্যাপসের কথা-ই আপনাদের সাথে শেয়ার করব— যেসব অ্যাপস কখনোই মোবাইলে ব্যবহার করবেন না কিংবা ব্যবহার করা উচিত না! চলুন তাহলে শুরু করা যাক!

যেসব অ্যাপস কখনোই ব্যবহার করবেন না

স্পিড বুস্টার

প্লে স্টোর বা অ্যাপ স্টোরে যদি স্পিড বুস্টার লিখে সার্চ করেন তবে আপনার সামনে একটা বিশাল বড়ো লিস্ট চলে আসবে। যার মধ্যে ৯৯% অ্যাপই ভুয়া। তাছাড়া এই অ্যাপগুলোর ডেভেলপাররা আপনার গুরুত্বপূর্ণ ও গোপন তথ্য চুরি করেও নিতে পারে। আবার ইন্টারনেট কানেকশন থাকা অবস্থায় বিরক্তিকর সব বিজ্ঞাপন দেখাতে শুরু করবে এই অ্যাপসগুলো। আপনি যদি এই ধরনের অ্যাপ ফোনে ইনস্টল করেন তবে আপনার ফোনের গতি বৃদ্ধি পাবে না উলটো ধীরগতির হয়ে যাবে। এছাড়াও ব্যাপক পরিমাণে ব্যাটারি বার্ন করতে সক্ষম এই ক্ষতিকর অ্যাপসগুলো। গুগল ও অ্যাপল প্রায় বিবৃতি প্রকাশ করে এই ধরনের অ্যাপ বন্ধের বিষয়ে। আপনাদের ফোনের যে ডিফল্ট স্পিড বুস্টার অ্যাপ দেওয়া থাকে সেগুলোই ব্যবহার করুন! বাড়তি কোনো অ্যাপ ব্যবহার করতে যাবেন না, তাহলে হিতে বিপরীত হতে পারে।

⏩ আরও পড়ুন: যেসব বিষয় কখনোই গুগলে সার্চ করবেন না!

ব্যাটারি সেভার

এমন অসংখ্য অ্যাপস রয়েছে যেগুলো দাবি করবে যে তারা আপনার ফোনের ব্যাটারি বার্ন হওয়া কমাতে সক্ষম। প্লে স্টোর বা অ্যাপ স্টোরে এধরনের অসংখ্য অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এই অ্যাপসগুলো আপনার ফোনের ব্যাটারি কোনোভাবেই সেভ করতে পারবে না, উলটো আপনার ফোনের ব্যাটারি বেশি করে বার্ন করবে। কারণ, এই অ্যাপগুলো ফোনের ব্যাকগ্রাউন্ডেও চালু থাকে অর্থাৎ আপনি ফোন স্লিপ মোডে রাখলেও তা আপনার ফোনের ব্যাটারি খরচ করতে সক্ষম। তাছাড়া ডেটা চুরির ঝুঁকি তো থেকেই যায়। তাই আমাদের উপদেশ থাকবে এই অ্যাপসগুলো ব্যবহার করবেন না।

ক্র‍্যাক বা ফ্রিতে প্রিমিয়াম অ্যাপ

আমরা হয়তো অনেকেই জানি না যে ফোনের বা কম্পিউটারের অ্যাপও কিনতে হয়। এমন কিছু অ্যাপস আছে যেগুলো আপনাকে অবশ্যই কিনে ইনস্টল করতে হবে। আবার এমন কিছু অ্যাপস আছে যেগুলো আপনি ফ্রিতে ইনস্টল করতে পারবেন এবং ব্যবহারও করতে পারবেন তবে এমন কিছু প্রিমিয়াম ফিচার থাকবে যেগুলো আপনি ব্যবহার করতে পারবেন না। এই অ্যাপসগুলো সম্পূর্ণভাবে ব্যবহার করার জন্য আমরা ইন্টারনেটে বিভিন্ন সোর্স থেকে ফ্রিতে ডাউনলোড করার সুযোগ পাই। কিন্তু কখনো কী ভেবে দেখেছেন এত দামি অ্যাপসগুলো কেন আপনাকে ফ্রিতেই তারা দিয়ে দেয়। এই অ্যাপগুলো সম্পূর্ণ অনিরাপদ। আসল অ্যাপসগুলোর কোড পরিবর্তন করে এর ভেতরে ভাইরাস পর্যন্ত ঢুকিয়ে দিতে পারে ওরা। আর আপনার ডিভাইসের নানান তথ্য, এমনকি ডিভাইসের ফুল অ্যাক্সেস পর্যন্ত হ্যাকারের কাছে চলে যেতে পারে। তাই অবশ্যই বিরত থাকবেন এই ধরনের পেইড অ্যাপস ফ্রিতে ইনস্টল করা থেকে। চেষ্টা করবেন কিনে ব্যবহার করতে অথবা অন্য কোনো সিমিলার অ্যাপ ব্যবহার করতে যেগুলো মূলত ফ্রি।

ওয়েট মিটার

কখনো কি ভেবে দেখেছেন— আপনার হাতের স্পর্শ দিয়েই আপনার ওজন কত তা বলে দেওয়া যাবে! খুবই আশ্চর্যজনক না ব্যাপারটা? আসলেই তাই। এখনো পর্যন্ত বিজ্ঞানীরা এমন কোনো প্রযুক্তি আবিষ্কার করতে সক্ষম হয়নি যেখানে আপনার হাতের স্পর্শের মাধ্যমে আপনার ওজন মাপা যাবে। কিন্তু ইন্টারনেটে এমন অসংখ্য অ্যাপস আছে যেগুলো দাবি করে যে তারা আপনার ওজন মেপে দিতে সক্ষম! মূলত এই অ্যাপসগুলো সম্পূর্ণ ভুয়া। এগুলো কোনো কাজের না। আপনাকে উল্টা-পাল্টা সব তথ্য দিতে থাকবে। এই অ্যাপসগুলো তৈরি করা হয় মূলত নানান আপত্তিকর বিজ্ঞাপন দেখানো ও আপনার ডিভাইসের ক্ষতি সাধন করার জন্য। তাছাড়া কোনো উপকার আপনার করবে না। এই ধরনের অ্যাপস কোনো পরিস্থিতিতেই ফোনে ইনস্টল করবেন না।

⏩ আরও পড়ুন: ইউটিউব মনিটাইজেশন ছাড়া আয় করার কয়েকটি উপায়!


প্রিয় পাঠক, এই ছিল— যেসব অ্যাপস কখনোই ব্যবহার করবেন না বা ব্যবহার করা উচিত না; সেসব সম্পর্কে বিস্তারিত! এখানে আমরা চার ধরনের অ্যাপসের কথা লিখলেও, এই লিস্ট কিন্তু অনেক বড়ো! সবগুলোর কথা লিখতে গেলে আর্টিকেলটি অনেক বড়ো হয়ে যাবে! তাই, আমরা আপনাদেরকে শুধু ধারণা দেয়ার চেষ্টা করলাম এই আর্টিকেলের মাধ্যমে! যেকোনো অ্যাপ ইনস্টল করার আগে অবশ্যই বুঝে-শুনে, ভেবে-চিন্তে ইনস্টল করবেন। আপনার সচেতনতাই পারে আপনার মোবাইল ও আপনাকে নিরাপদ রাখতে। তাই সবসময় সচেতন থাকবেন। আশা করি, আর্টিকেলটি আপনার কাজে আসবে। কোনো ধরনের প্রশ্ন থাকলে নিচের কমেন্ট বক্সে জানান। আর পোস্টটি ভালো লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। ধন্যবাদ!

পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন:

1 thought on “যেসব অ্যাপস কখনোই ব্যবহার করবেন না!”

  1. ধন্যবাদ গুরুত্বপূর্ণ একটা লেখা পোস্ত করার জন্য

মন্তব্য করুন: